মুরাদ টাকলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

মুরাদ টাকলা বাংলা ভাষার কীবোর্ড-বিপর্যয়জাত বিকৃত একটি রূপ। ডিজিটাল মাধ্যমে রোমান হরফে বাংলা লিখতে গিয়ে ভাষাগত অজ্ঞতাবশত এই ভাষার উদ্ভব। মুরাদ টাকলা (Murad Takla)'র আক্ষরিক বাংলা অর্থ "মুরোদ থাকলে"। এর সাথে মুরাদ নামের কোনো ব্যক্তির সংশ্লিষ্টতা নেই।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

একদা আমাদের একজন এডমিনের নিকট জনৈক Joyonto Kumer লিখেছিলেন "Murad takla jukti diya bal, falti pic dicos kan! Lakapar kora kata bal, আমরা অবাক হয়ে ভাবছিলাম, আমাদের মধ্যে মুরাদ নামে তো কেউ নেই, টাকলুও নেই, তাহলে কার কথা বলা হচ্ছে? অনেক ভাবার পর বুঝতে পারলাম, অনুবাদ: "মুরোদ থাকলে যুক্তি দিয়ে বল। ফালতু ছবি দিছস ক্যান? লেখাপড়া করে কথা বল"।

সেই থেকে Murad Takla নামটির উদ্ভব এবং যার বাংলা অর্থ আসলে "মুরোদ থাকলে।"

মুরাদ টাকলার উৎপত্তি এখান থেকেই

লক্ষ্য[সম্পাদনা]

মুরাদ টাকলার একমাত্র লক্ষ্য ইন্টারনেট ও ইলেকট্রনিক মাধ্যমে বাংলা অক্ষরে বাংলা লেখার প্রচলন করা। এই লক্ষ্যে সাহায্যকারী পেজ হিসেবে রয়েছে ফেসবুক পেজ "বাংলা কথা বাংলাতেই লিখুন" [১] যেখান থেকে আপনারা কম্পিউটার এবং মোবাইলে বাংলা লেখার পদ্ধতি সংক্রান্ত যেকোন সাহায্য পাবেন। এছাড়া সমমনা বন্ধু পেজ হিসেবে রয়েছে ফেসবুক পেজ জাতি [২] ও সমাহিত বাংলা। [৩]

নীতিমালা[সম্পাদনা]

মুরাদ টাকলা কোনো নীতিমালা বা আইনকানুন প্রণয়নে বিশ্বাস করে না, তারা কর্তৃত্বের হুকুমদারিতেও বিশ্বাস করে না। তারা গোষ্ঠীবদ্ধ হয়ে কাজ করতে চায় এবং অরাজে বিশ্বাস করে, অর্থ্যাৎ, তাদের জগতে কেউ কারও রাজা বা কর্তৃপক্ষ নয়। তাই, মুরাদ টাকলার কোনো আইন নাই, কিন্তু, কিছু কমুনিটি স্ট্যান্ডার্ড আছে যেগুলো পেজকে অনাকাঙ্খিত বিপর্যয় থেকে রক্ষা করবে। আমরা নিম্নে উল্লিখিত স্ট্যান্ডার্ড মানবিক, সামাজিক ও রাজনৈতিক নানাবিধ পরিস্থিতির কারণে মেনে চলতে আহবান করি।

১. সকলকে বাংলিশ লেখা বর্জনের জন্য আহবান করা হচ্ছে। পেজের স্বীকৃত ভাষা হল বাংলা এবং ইংরেজি। তাই, সকলকে বাংলা ফন্টে বাংলা এবং ইংরেজি ফন্টে ইংরেজি ব্যবহারের জন্য আহবান করা হচ্ছে।

২. মানবিক কারণে তুচ্ছার্থে "প্রতিবন্ধী" শব্দটির ব্যবহার আমরা করব না।

৩. যৌনহয়রানী মূলক এবং নারী ভক্তদের প্রতি অপমানজনক মন্তব্য প্রদান থেকে বিরত থাকার আহবান করা হচ্ছে।

৪. সকল প্রকার ব্যক্তিগত আক্রমণ, কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য ও গালিগালাজ থেকে বিরত থাকার আহবান করা হচ্ছে।

৫. রাজনৈতিক, ধর্মীয় অথবা উদ্দেশ্যপূর্ণ ও অযাচিত প্রপাগান্ডা তৈরি করা থেকে বিরত থাকতে অনুরোধ করা হচ্ছে। সেইসাথে বিভিন্ন বিতর্কিত ও রাজনৈতিক শব্দ, যেমন: ছাগু, ভাদা, নাস্তিক-আস্তিক, লীগ-বিম্পি, শিবির-জামাত, বাংলা মিডিয়াম-ইংলিশ মিডিয়াম ইত্যাদি শব্দের ব্যবহারকে অনুৎসাহিত করা হচ্ছে।

৬. ২ ও ৫ নম্বর বিধানে উল্লিখিত কোনো আপত্তিকর শব্দ যেমন: প্রতিবন্ধী, ছাগু, ভাদা ইত্যাদি কোনো আসল মুরাদ টাকলার স্ক্রিনশটে থাকলে পোস্ট করার খাতিরে শব্দগুলো ব্যবহারযোগ্য বলে বিবেচিত হবে।

৭. পেজে স্প্যামিং না করার জন্য অনুরোধ করা হচ্ছে। অযাচিত বন্ধু হবার আহবান, পেজে লাইক দেওয়ার আহবান এবং মোবাইল নম্বর আদান-প্রদানের আহবান ইত্যাদি কর্মকান্ড থেকে বিরত থাকার পরামর্শ প্রদান করা হচ্ছে।

স্ক্রিনশট পাঠানো যাবে যেভাবে[সম্পাদনা]

মুরাদ টাকলার স্ক্রিনশট পাঠানো যেতে পারে নিম্নবর্ণিত উপায়ে:[৪]:

১. মুরাদ টাকলায় কোনো স্ক্রিনশট একবার ছাপানো হলে তা আর অন্যকোনো পেজে বা ব্যক্তিগতভাবে না ছাপানোর জন্য অনুরোধ করা হচ্ছে। তবে, যেকোনো পোস্ট যেকোনো ফ্যান বা "ফ্রেন্ড অফ ফ্যানগণ" ইচ্ছামত শেয়ার করতে পারবেন।

২. স্ক্রিনশটের সাথে কাজের সুবিধার্থে সেই স্ক্রিনশটের টেক্সটটি কপি করে পাঠানো জরুরী।

৩. স্ক্রিনশট ওয়ালে পোস্ট না করে মেসেজে পোস্ট করাটা উত্তম উপায়।

৪. স্ক্রিনশট ইনবক্সে পাঠানোর পরে আমরা "আর্কাইভ করা হলো" বা সমার্থক কোনো রিপ্লাই দিলে ধরে নিতে হবে, পোস্টটি ছাপানোর জন্য মনোনীত হয়েছে। এরপর পোস্ট না করা পর্যন্ত সম্মানীত ফ্যানদের ধৈর্য্য ধরার জন্য অনুরোধ করছি।

৫. একাধিক স্ক্রিনশট যখন খুশী ইনবক্সে পাঠানো যাবে। এমনকি একটি স্ক্রিনশট আর্কাইভ থাকা অবস্থায়ও নতুন স্ক্রিনশট পাঠানো যাবে।

এডমিন[সম্পাদনা]

মুরাদ টাকলার এডমিনদের নামকরণে দুইটি ধারা ছিলো। প্রথমটি সংখ্যানাম। উল্লেখ্য, সংখ্যানামের ধারণাটি এই পেজেই প্রথম চালু করা হয়। যা পরবর্তীতে বাতিল করে ছদ্মনামে পরিবর্তন করা হয়। সেইসাথে মুরাদ টাকলার পুরো এডমিন প্যানেল পরিবর্তন করা হয়। মুরাদ টাকলায় বর্তমানে ১৩ জন এডমিন রয়েছেন যাদের বিভিন্ন ছদ্মনামে ডাকা হয়। মুরাদ টাকলার এডমিনরা সচরাচর নিজেদের নাম প্রকাশ করেন না। তবে, নাম প্রকাশ না করার ক্ষেত্রে কোনো বাধাধরা নিয়ম নাই। অর্থ্যাৎ, যেকোন এডমিন চাইলেই যেকারও কাছে নিজের পরিচয় প্রকাশ করতে পারেন।

মুরাদ টাকলার প্রতিষ্ঠা কাল থেকে এডমিন ছিলেন ৪ জন। প্রতিষ্ঠাতা এডমিনকে ডাকা হয় "Ade o asshole murad takla" বা "আদি ও আসল মুরাদ টাকলা" নামে। এছাড়া #৩ ও #৪ সহপ্রতিষ্ঠাতা হিসেবে শুরু থেকেই পেজের সাথে ছিলেন। পরবর্তীতে বিভিন্ন সময়ে এডমিন নিয়োগ দেওয়া হয়। এডমিন নিয়োগের ক্ষেত্রে কোনো বাধাধরা নিয়ম নেই। পেজে যেসকল ফ্যানের সরব উপস্থিতি ও বুদ্ধিদীপ্ত কমেন্ট, উন্নত রসবোধ লক্ষ্য করা যায় তাদেরকে এডমিন হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়। পুরোনো সংখ্যানামে এডমিনদের নম্বরগুলো হল

আদি ও আসল মুরাদ টাকলা, নম্বর ১,২,৩,৪,৫,৬,৭,৮,৯,১০,১১,১২,১৩,১৪,১৫, ১৬, ১৮ এবং জাতীয় গায়ক।

এবং বর্তমানে ছদ্মনামে নতুন এডমিন প্যানেলের নামগুলো হলো -

পাথফাইন্ডার, ওয়ারেন হেস্টিংস/মুখপাত্র, ডায়নোসর, ইকারাস, anubis/osiris, হেইজেনবার্গ, সব্যসাচী, ফেরারী, স্লিমশ্যাডি, Mr. Hide, পিকাচু, আইনস্টাইন, যীগফ্রীড (Siegfried)

মুরাদ টাকলার একজন গায়ক এডমিন ছিলেন যাকে মুরাদ টাকলাদের "জাতীয় গায়ক" বলে ডাকা হত। #২ এর সংগীতায়োজনে জাতীয় গায়ক বিভিন্ন সময়ে "টাকলা ভাষায়" গান করেতন। বর্তমানে এই কাজটি সব্যসাচী ও ওয়ারেন হেস্টিংস মিলে করে থাকেন।

মুরাদ টাকলার সকল কাজ পরিচালনা, পেজ সংক্রান্ত বিভিন্ন সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য ও অবসরে আড্ডার জন্য এডমিনদের একটি ক্লোজড গ্রুপ আছে। সেই গ্রুপে পেজ সংক্রান্ত বিভিন্ন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। এছাড়া, অবসরে মুরাদ টাকলার বিভিন্ন এডমিনগণ একত্রে হয়ে "টাকলা সম্মেলন" করে থাকেন। মুরাদ টাকলার এডমিনগণ ঢাকা, রাজশাহী, সিলেট, চট্টগ্রামসহ দেশের নানাপ্রান্তে ও আমেরিকা, জামার্নী ও কানাডা সহ বিদেশের নানাপ্রান্তে ছড়িয়ে রেয়েছেন। এডমিন সংখ্যা ভবিষ্যতে আরও বাড়ানোর চিন্তাভাবনাও পেজটির রয়েছে।

ভক্ত[সম্পাদনা]

১১ জানুয়ারি, ২০১৮, স্থানীয় সময় রাত ২:২৭ মিনিট অনুযায়ী মুরাদ টাকলার বর্তমান ভক্ত সংখ্যা ৩২০,৬৩০ জন। এই সংখ্যা দিনকেদিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।

বিভ্রান্তি বিলাস[সম্পাদনা]

বিভ্রান্তি বিলাস মুরাদ টাকলার সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি সিরিজ। এটি উদ্ভাবন করেন সাবেক এডমিন নম্বর ২। বিভ্রান্তি বিলাস অধিকাংশেই কাল্পনিক, তবে কখনো কখনো সত্যিকার বিভ্রান্তি বিলাসের দেখাও মেলে। তবে বিভ্রান্তি বিলাসে ব্যবহৃত শব্দগুলোর নজির বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন টাকলা টেক্সটে পাওয়া যায়। সেইসব নজির ব্যবহার করেই কাল্পনিক আদিরসাত্মক টাকলা টেক্সট তৈরি করা হয় যা সর্বদা দুইরকমের তাৎপর্য বহন করে। টাকলা টেক্সটটি পড়ে অনেকসময় সেগুলোকে অশ্লীল পোস্ট বলে বিভ্রান্তি হতে পারে। বস্তুত, সেগুলো মোটেও অশ্লীল নয়, বরং অত্যন্ত সাধারণ কোনো কথা। এইভাবে বিভ্রান্তির মাধ্যমে হাস্যরস সৃষ্টির প্রক্রিয়াকেই বলা হয় বিভ্রান্তি বিলাস। এরকম একটি উদাহরণ হলো:

"Amer garl frand ameke pundiyace. Pundiye sa kove sante payace. Tomrao tmdr gf/bf ka pundao."

উচ্চারণ: আমের গার্ল ফ্রান্ড আমেকে পুন্দিয়াচে। পুন্দিয়ে সা কোভে সান্তে পায়াচে। তোমরাও তম্দ্র গফ/বফ কে পুন্দাও।

বঙ্গানুবাদ: আমার গার্লফ্রেন্ড আমাকে ফোন দিয়েছে। ফোন দিয়ে সে খুব শান্তি পেয়েছে। তোমরাও তোমাদের গার্লফ্রেন্ড/বয়ফ্রেন্ডকে ফোন দাও।

একটি আসল বিভ্রন্তি বিলাসের উদাহরণa হল:

"Amer carj penis."

উচ্চারণ: আমের চার্জ পেনিস।

বঙ্গানুবাদ: আমার চার্জ ফিনিস।

বারংবার অনুরুদ্ধ প্রশ্ন[সম্পাদনা]

প্রশ্ন: মুরাদ টাকলা নামটি কী মুরাদ নামক কোনো ব্যক্তিকে বুঝানো হয়েছে? এর উৎপত্তি হল কেমন করে?

উত্তর: মুরাদ টাকলা শব্দটির উৎপত্তি Murad takla থেকে যার বাংলা অর্থ আসলে "মুরোদ থাকলে।" সুতরাং, মুরাদ টাকলা নামটি মুরাদ নামক কোনো ব্যক্তিকে হেয় করে না।

প্রশ্ন: মুরাদ টাকলায় বিভ্রান্তি বিলাস সিরিজে কক, পেনিস, গে, পোদ, পুসি ইত্যাদি যেসব অশ্লীল শব্দ ব্যবহার করা হয় সেসব বিবেচনায় এই পেজ কী নোংরামী করছে না?

উত্তর: না, কারণ, এসব শব্দ সত্যিকার মুরাদ টাকলারা অহরহ নির্দ্বিধায় ব্যবহার করেই চলেছেন, আমরা কেবল সেগুলো ছাপাচ্ছি মাত্র। এছাড়া বিভ্রান্তি বিলাসে সেগুলোর প্রয়োগ করে হাস্যরস সৃষ্টি করার চেষ্টা করছি মাত্র।

প্রশ্ন: বিভ্রান্তি বিলাস তো আসল নয়? সেখানে অশ্লীল শব্দের অবাধ প্রয়োগ কৃত্রিম ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত নয় কী?

উত্তর: বিভ্রান্তি বিলাস শতকরা প্রায় ৯০% ক্ষেত্রে আসল নয়, বানানো। এবং, হ্যাঁ, এখানে অশ্লীল শব্দের প্রয়োগ কৃত্রিম এবং উদ্দেশ্য প্রণোদিত। কিন্তু, সেই উদ্দেশ্যটি হল কেবলমাত্র হাস্যরস সৃষ্টি করা - ১৮+ পেজের মতো কৃত্রিম উপায়ে যৌনসুখ প্রদান করা নয়। আর, অশ্লীল শব্দের প্রয়োগ কৃত্রিম হলেও শব্দগুলোর বাস্তব অস্তিত্ব রয়েছে, কেননা, সেইসব শব্দ পূর্বে আসল মুরাদ টাকলারা বিভিন্নভাবে ব্যবহার করেছেন। তাছাড়া সেইসব অশ্লীল শব্দগুলোকে আপাত যে অর্থে পড়া হয়, বস্তুত সেগুলোর অর্থ মোটেও অশ্লীল নয়।

প্রশ্ন: নারীর প্রতি মুরাদ টাকলা কেমন দৃষ্টিভঙ্গী পোষণ করে?

উত্তর: একথা সত্য, মুরাদ টাকলা দ্ব্যর্থক শব্দ ব্যবহার করে যার প্রায় সবগুলোই অশ্লীল, তবু্‌ও সেগুলো যেন কখনো নারী-পুরুষ বা ব্যক্তি বিশেষকে ছোট না করে সে বিষয়ে সবচেয়ে সচেতনতা অবলম্বন করা হয়। কোন নির্দিষ্ট ফ্যানের উপর যৌন-হয়রানীর ইঙ্গিতপূর্ণ কোনোকিছু যেন পোস্ট না হয় সে ব্যাপারে পেজের এডমিনগণ সবসময় সচেতন থাকেন। কারণ, মুরাদ টাকলা নারীর উপর মানসিক ও শারীরিক যৌন হয়রানীকে সমর্থন করে না । তারা নারীর জন্য স্বাচ্ছন্দ্যময় পরিবেশ সৃষ্টি করায় বিশ্বাস করে। নারীকে তার প্রাপ্য মর্যাদা দিতে মুরাদ টাকলা বদ্ধ পরিকর। তারা নারী-পুরুষের সুস্থ-স্বাভাবিক, আনন্দময় ও বন্ধুত্বপূর্ণ সহাবস্থানে বিশ্বাস করে।

প্রশ্ন: মুরাদ টাকলার এডমিনদের রাজনৈতিক দর্শন কি?

উত্তর:

প্রশ্ন: মুরাদ টাকলা কি নিছকই হাসির খোরাক নাকি কোনো আন্দোলন? এর উদ্দেশ্য কি? এর কার্যপরিধিই বা কতটুকু?

উত্তর:

মুরাদ টাকলা ও সেলিব্রিটিরা[সম্পাদনা]

মুরাদ টাকলার ভক্ত তালিকায় আছেন স্বয়ং বেসবাবা ও বাপ্পা মজুমদার। তাঁরা বিভিন্ন সময়ে মুরাদ টাকলা ভাষায় ব্যাঙ্গ করে স্ট্যাটাস দিয়ে আমাদের উৎসাহ দিয়ে থাকেন।

টি-শার্ট[সম্পাদনা]

এডমিনদের সঙ্গে আড্ডা[সম্পাদনা]

আমি প্রায়শ্চই মজাদার এবং হাস্যকর পোস্ট পাই, কিভাবে সেগুলো মুরাদ টাকলায় পাঠাবো ?

ব্লগ জগতে মুরাদ টাকলা[সম্পাদনা]

ব্লগ জগতে মুরাদ টাকলার নাম বিভিন্নভাবে ছড়িয়ে পড়ে। তবে সর্বপ্রথম মুরাদ টাকলা বিষয়ে গবেষণা করে ব্লগ লেখেন ব্লগার তৌসিফ হামীম। তৌসিফ হামীমের সেই লেখাগুলোর লিংক এখানে দিয়ে দেওয়া হল:

মুরাদ টাকলা- ইউনিক বিনোদন, ইউনিক ব্যান্ড (প্রথম পর্ব): http://www.cadetcollegeblog.com/taosif-hamim/40686

মুরাদ টাকলা- ইউনিক বিনোদন, ইউনিক ব্যান্ড (দ্বিতীয় পর্ব): http://www.cadetcollegeblog.com/taosif-hamim/40686

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. বাংলা কথা বাংলাতেই লিখুন ফেসবুক পেজ]
  2. জাতি]
  3. সমাহিত বাংলা]
  4. স্ক্রিনশট পাঠাবার নিয়মাবলি

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]